খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের উদ্বোধন

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৫৬ PM, ২৮ অগাস্ট ২০২০

শেখ নাসির উদ্দিন, খুলনা প্রতিনিধিঃ  আজ ১৩ ভাদ্র, ৮ মহররম, ২৮ আগস্ট, শুক্রবার, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘ প্রতীক্ষিত কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হল। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বেলে সাড়ে ১২ টায় মসজিদের উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করেন এর আগে সোয়া ১২ টায় জুম্মার নামাজের আযান অনুষ্ঠিত হয়। এরপর পবিত্র জুম্মার নামাজ আদায়ের মাধ্যমে মসজিদের কার্যক্রম শুরু হয়। জুম্মার নামাজে দেশ, জাতি ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি, সমৃদ্ধি এবং কল্যাণ কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। ১৪৫০০ বর্গফুট আয়তনের একতলা বিশিষ্ট এই মসজিদে একসাথে প্রায় দুই হাজার মুসল্লিরও বেশী নামাজ আদায় করেন।

উপচার্য বলেন, মসজিদটির নির্মাণের অবশিষ্ট কাজ সম্পূর্ণ হলে এটি হবে খুলনার অন্যতম একটি সৌন্দর্য্যমতি মসজিদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের তৎকালীন শিক্ষক মুহাম্মদ আলী নকী মসজিদটির প্রাথমিক নকশা প্রণয়ন করেন। পরবর্তীতে একই ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক শেখ মোঃ মারুফ হোসেনের নেতৃত্বে একটি টিম মসজিদের পূর্ণাঙ্গ নকশার কাজ চূড়ান্ত করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন বর্তমান জামে মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মওলানা মুফতি আব্দুল কুদ্দুসকে নতুন এই কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমামতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং তিনি জুম্মার নামাজ পড়ান। নামাজ শেষে পেশ ইমাম হাফেজ ক্বারী মোঃ মুস্তাকীম বিল্লাহ কোরআন তেলাওয়াত করেন । এদিকে ফলক উন্মোচন ও উদ্বোধনপর্বসহ জুম্মার নামাজের আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনা হয় এতে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মোঃ ফায়েক উজ্জামান, রেজিস্টার প্রফেসর খাঁন গোলাম কুদ্দুস, ড. রেজাউল করীম ও ড. মারুফ হোসেন। উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের কটকা স্মৃতি সৌধের অদূরে প্রায় এক একর জায়গা জুড়ে এই মসজিদটির অবস্থান। যার অদূরেই রয়েছে ছাত্রদের তিনটি হল, যথাক্রমে: খানজাহান আলী হল, খানবাহাদুর আহছানউল্লা হল এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল। অপরদিকে মসজিদটির উত্তর-পশ্চিমে রয়েছে ড. সত্যেন্দ্র নাথ বসু একাডেমিক ভবন, আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবন, কবি জীবনানন্দ দাশ একাডেমিক ভবন এবং কাজী নজরুল ইসলাম কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি।

আপনার মতামত লিখুন :