Agaminews
Dr. Neem Hakim

জলাবদ্ধ রাস্তায় জলভাসী মানুষের চরম দুর্ভোগ


বার্তাকক্ষ প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১, ২০২০, ৪:০৯ অপরাহ্ন /
জলাবদ্ধ রাস্তায় জলভাসী মানুষের চরম দুর্ভোগ

স্বীকৃতি বিশ্বাস।

 যশোর সদরের কিছু অংশ,অভয়নগর, মনিরামপুরের অধিকাংশ, কেশবপুর, ডুমুরিয়া ও ফুলতলার অংশ বিশেষ নিয়ে দীর্ঘাস্থায়ী ভাবে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় আশির দশক থেকে অদ্যাবধি। জলাবদ্ধ এই এলাকার নাম ভবদহ এলাকা। বাংলাদেশের বন্যা প্রবন এলাকাগুলোতে দেখা যায় বন্যার পানি কিছু দিন পর বাড়িঘর উঠান,মাঠঘাট থেকে নেমে যায় কিন্তু ভবদহ এলাকার মানুষের বাড়িঘর,উঠান ও রাস্তায় পানি দীর্ঘদিন অাবদ্ধ অবস্থায় থেকে যায়। ফলে অত্র এলাকার মানুষের দুর্ভোগ এখন চরমে। 

দীর্ঘদিন রাস্তায় জলাবদ্ধ থাকায় যোগাযোগের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগের শিক্ষার হচ্ছেন ভবদহ এলাকার জনগন। অত্র এলাকার বেশকিছু রাস্তায় এখনো পানি জমে আছে। রাস্তাগুলিতে দীর্ঘদিন পানি জমে থাকার কারনে চলাচলের জন্য দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে। দুর্ভোগের অপর নাম হয়ে পড়েছে জলাবদ্ধ রাস্তাগুলো। প্রতিনিয়ত এই রাস্তাগুলিতে ঘটছে দূর্ঘটনা। প্রতিদিন কয়েক লক্ষাধিক মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে।

 

অভয়নগর ও মনিরামপুর উপজেলার সংযোগ সংযোগ সড়ক নওয়াপাড়া-মশিয়াহাটী রাস্তার সরখোলা নামক স্থানে প্রায় আধা কিলোমিটার রাস্তা এখনো অল্প পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। যে কারণে পথাচারীদের রাস্তায় দূর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। আবার অনেকেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পার হচ্ছে। অসুস্থ রোগীদেরও সঠিক সময়ে হাসপাতালে পৌঁছাতে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে এই রাস্তায় কারণে।ভুক্তভোগীরা জানান, এখানে প্রায়ই মোটর সাইকেল উল্টে পানির মধ্যে পড়ে যায়।

সরজমিনে দেখা যায়,সরখোলা রাস্তায় এ্যাম্বুলেন্স আটকে পড়ে আছে। অসুস্থ হয়ে পড়ায় একজন রোগীকে আনতে যাওয়ার জন্য যাচ্ছিলেন, কিন্তু রাস্তায় আটকে পড়ায় এ্যাম্বুলেন্সটি দ্রুত পৌঁছাতে পারেনি।পরে অন্য একটি এ্যাম্বুলেন্সে করে সেই রোগীকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। এখনে নিদিষ্ট সময়ে এ্যাম্বুলেন্স না আসার ফলে রোগীর দূর্ঘটনা ঘটে যায়। মটর সাইকেল চালকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পার হয়ে যায়। ইজি বাইকের যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয়ে পার হয়ে নওয়াপাড়ায় যায় না বিধায় জনগনের আর্থিক ক্ষতির পরিমানও বেড়ে যাচ্ছে।রাস্তায় আটকে যাওয়া এ্যাম্বুলেন্সের ড্রাইভার আনিসুর তিনি বললেন, রাস্তায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। আর পানির মধ্যে এসব গর্ত দেখতে না পাওয়ার কারণে গাড়ী নিয়ে এই রাস্তায় জলের মধ্যে আটকে পড়েছি। ভুক্তভোগীরা জানান, আধা কিলোমিটার রাস্তা পার হতে প্রায় আধা ঘন্টা সময় লাগছে৷

এব্যাপারে অভয়নগর উপজেলা প্রকৌশলী কামরুল ইসলাম বলেন, নওয়াপাড়া টু মশিয়াহাটী রাস্তার সংস্কারের জন্য বাজেট পাঠানো হয়েছে, অনুমোদন পেলে রাস্তা নির্মান করা হবে। আর সরখোলা নামক স্থানে ব্রিজের সমান উঁচু করে রাস্তা করা হবে।