Agaminews
Dr. Neem Hakim

বাগাতিপাড়ায় রেল স্টেশনের কার্যক্রম বন্ধ, জনদুর্ভোগ


আবদুল্লাহ আল হাদী প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২০, ২০২০, ৯:৫০ অপরাহ্ন /
বাগাতিপাড়ায় রেল স্টেশনের কার্যক্রম বন্ধ, জনদুর্ভোগ

স্টাফ রিপোর্টার :  নাটোরের মালঞ্চি, ইয়াছিনপুর ও বাসুদেবপুর রেল স্টেশন চলছে স্টেশন মাষ্টার ছাড়া।

অনেক আগেই এই স্টেশনগুলির কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে এসব স্টেশনে সিগনাল ছাড়াই চলছে ট্রেন। স্টেশনে ঝুলছে তালা।

এসব স্টেশনে চারটি পৃথক রেলক্রসিংয়ের ব্যবস্থা থাকলেও ব্যবহারের উপযোগী মাত্র একটি। সেটাও প্লাটফরম থেকে বেশ দূরে। ফলে ব্রেঞ্চ বা মই লাগিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উঠানামা করতে হয় যাত্রীদের। গুরুত্বপুর্ন এসব স্টেশন পুনরায় চালুর দাবি এলাকাবাসীর।

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় উপজেলায় তিনটি রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যে মালঞ্চি ও ইয়াছিনপুর দুইটি রেলওয়ে স্টেশনের জনবল সংকটের কারণ দেখিয়ে প্রায় ১০ থেকে ১৫ বছর আগে স্টেশনের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় রেল কর্তৃপক্ষ। রেল ক্রসিংয়ের সকল ব্যবস্থা চালু ছিল এই দুটি স্টেশনে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১৯২৭ সালে বৃটিশ সরকারের আমলে স্থাপিত মালঞ্চি স্টেশনটি বাগাতিপাড়া উপজেলা সদরে এবং সরকারী অফিস সমুহ স্টেশন সংলগ্ন হওয়ায় অনেকেই রেল পথে এসে অফিস করতেন।

এছাড়া কাদিরাবাদ সেনানিবাস ও একটি আর্মি টেকনিক্যাল বিশ্বদ্যিালয় সহ একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এই স্টেশনকে ঘিরে। কিন্তু স্টেশনের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়ায় সড়ক পথ এখন একমাত্র যোগাযোগ ব্যবস্থা। দুটি লোকাল ট্রেন এই স্টেশনে দাঁড়ালেও তা নিজের ইচ্ছায় চলাচল করে। যাত্রিদের ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে হয় স্টেশনে। আবার ট্রেন এসে থামে প্লাটফরমের বাহিরের লাইনে। ফলে নারী, শিশু, বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধি মানুষদের ট্রেনে উঠতে নামতে কষ্ট হয়। কখনও ব্রেঞ্চ অথবা মই দিয়ে যাত্রিদের ট্রেনে উঠতে সাহায্য করেন স্থানীয়রা।

এই স্টেশনের নৈশ প্রহরি আব্দুস সালাম বলেন, নৈশ প্রহরি হিসেবে কর্মরত থাকলেও তাকেই সব দায়িত্বই পালন করতে হয়।

এদিকে এসব স্টেশন দির্ঘদিন বন্ধ থাকায় স্টেশনের সিগনাল ও লাইন সহ অনেক মুল্যবান সম্পদ চুরি বা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। স্টেশনটি পুনরায় পুর্বের ন্যায় চালুর দাবি এলাকাবাসী সহ ভুক্তভোগীদের।

গুরুত্বপুর্ন এসব স্টেশন জনবলের অভাবে বন্ধ হয়েছে বলে জানান, নাটোরের স্টেশন মাষ্টার অশোক কুমার চক্রবর্তী। স্টেশনগুলি পুনরায় চালু করতে জনবল নিয়োগ পক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্টেশনগুলি বন্ধ কেন এবং এগুলো চালুর বিষয়ে কি উদ্দোগ নেয়া হয়েছে, এ বিষয়ে পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপকের কাছে জানতে চেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বলেছেন বলে জানিয়েছেন রেল পথ মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় কমিটির সদস্য এবং নাটোর-২ (সদর-নলডাঙ্গা) আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল।