ইন্টারনেট বন্ধ করে গ্রাহক ভোগান্তির আন্দোলন প্রত্যাহার করুন

আবদুল্লাহ আল হাদীআবদুল্লাহ আল হাদী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:১১ PM, ১৭ অক্টোবর ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদন :    ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের সংগঠন আইএসপিএবি ও কোয়াব আগামীকাল থেকে ৩ ঘন্টার ইন্টারনেট বন্ধের যে কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন তার প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন। আজ ১৭ অক্টোবর ২০২০ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ এ দাবি জানান।

মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, “ বর্তমানে ইন্টারনেট জনগণের মৌলিক অধিকারে পরিণত হয়েছে। তাছাড়া শিক্ষা, চিকিৎসা, ব্যাংক, বিমা, অফিস, আদালত, মোবাইল ব্যাংকিং ও মোবাইল সেবা সহ প্রায় সবকিছুই পরিচালিত হচ্ছে ইন্টারনেট সেবার মাধ্যমে। ইন্টারনেট ব্যবসায়ীদের এ কর্মসূচি তাদের দৃষ্টিতে যৌক্তিক হলেও বাস্তবতা ভিন্ন। পিক টাইমে ইন্টারনেট বন্ধ থাকলে আদালত, ব্যাংক, সরকারি বেসরকারি অফিস, মোবাইল অপারেটরদের কাস্টমার সেন্টার ও মোবাইল ব্যাংকিংও বন্ধ থাকবে। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত হবে প্রতিষ্ঠান ও গ্রাহকরা।

রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থায়ও বিঘœ ঘটতে পারে। সবচাইতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে শিল্প কারখানা ও চিকিৎসা ব্যবস্থা। তাই এ ধরণের আত্মঘাতি মূলক কর্মসূচি পালন করা মোটেও উচিত হবে না।”

মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের সভাপতি বলেন, “ইন্টারনেট বন্ধ রাখা ভোক্তার অধিকার আইন ২০০৯ এর ৪৩ ধারার পরিপন্থি। সমস্যা ১-২ বছরের নয়, তাই সিটি কর্পোরেশনের উচিত হয়ে বলপূর্বক ক্যাবল অপসারণ না করে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়ে সংশ্লিষ্ট পক্ষের সাথে আলোচনা করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা। এতে করে রক্ষা হবে সকল পক্ষের অধিকার। তাই বৃহৎ স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ে আইএসপি অপারেটরদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হোক।”
মহিউদ্দীন আহমেদ
সভাপতি
বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন

আপনার মতামত লিখুন :