লিবিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী দল গুলোকে আলোচনায় আসার আহ্বান জাতিসংঘের

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:০৭ PM, ১৫ অক্টোবর ২০২০

খন্দকার আবুল হায়াত পুলক

লিবিয়ায় জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত তাহের আল-সুন্নি লিবিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলিকে গৃহযুদ্ধ বন্ধে আলোচনায় আশার আহ্বান জানান। ২০১১ সালে মুয়াম্মার গাদ্দাফির পতনের পর থেকে ১০ বছর ধরে দেশটিতে গৃহযুদ্ধাবস্থা চলে আসছে৷ আলোচনায় তাদের রাজনৈতিক স্বার্থের আগে জাতীয় স্বার্থকে স্থান দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন তিনি।
সশস্ত্র গোষ্ঠী দ্বারা আধিপত্য বিস্তার করার চেষ্টা করছে লিবিয়া। লিবিয়ার এক সশস্ত্রগোষ্ঠীর নেতা খলিফা হাফতারের ত্রিপোলি দখলের অভিযানে ইতিমধ্যে রাজধানী ছেড়েছেন প্রায় কয়েক হাজার লোক ৷
নভেম্বরের শুরুতে আলোচনার আয়োজন করতে চলেছে প্রতিবেশী দেশ তিউনিসিয়া, যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকবে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা, উপজাতি গোষ্ঠিদের প্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতারা এবং উভয় প্রশাসনের প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থার সদস্যগণ।
সোমবার তিউনিসিয়ার রাষ্ট্রপতি কাইস সায়েদের সাথে সাক্ষাত শেষে জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত স্টিফানি উইলিয়ামস বলেন, “আমরা অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে এমন ব্যক্তিরা দেখতে চাই যারা রাজনৈতিক দলের স্বার্থের চেয়ে নিজ দেশের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দেবেন”।
সরকারের প্রধান ফয়েজ আল সররাজ উপস্থিত থাকবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “ সরকারের উচ্চ পদস্থ কেউ অংশগ্রহণ করতে চাইলে তাকে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে শুধু মাত্র এই শর্তে তারা অংশ নিতে পারবেন। এর মধ্যে রাষ্ট্রপতি পরিষদ, প্রধানমন্ত্রীর ও মন্ত্রিসভার সদস্যগণও অন্তর্ভুক্ত।
তিনি আরও বলেন, আলোচনার উদ্দেশ্য জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়া।
নভেম্বরের বৈঠকের আগে, ২৬ শে অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের একত্রিত করার পরিকল্পনা করেছে জাতিসংঘ।
এছাড়াও আগামী ১৯ অক্টোবর থেকে জেনেভায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।
এ আলোচনায় যৌথ সামরিক কমিশনের প্রতিনিধিদের মুখোমুখি প্রতিপক্ষের পাঁচ জন কর্মকর্তা।
তিউনিসিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওথমান জেরান্দি আলজাজিরা কে বলেন, “লিবিয়ানদের নিজেদের মধ্যে একটি সংলাপ খুব প্রয়োজন যা থেকে তাদের রাজনৈতিক সঙ্কটের সমাধান আসতে পারে”।

আপনার মতামত লিখুন :