এই ব্যাচের কথা যেনো মনে না হারিয়ে যায়~মুগ্ধ খন্দকা

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:০৪ PM, ০৯ অক্টোবর ২০২০

।বাজারে মানুষের জন্য হাঁটা যাচ্ছে না কারো মাস্ক নেই, কারো মাথায় সানগ্লাস আর থুতনিতে মাস্ক, কেউ আবার শুধু মিডিয়ার সামনে জনসেবায় লাগায় হ্যান্ড গ্লোবস! রাজনৈতিক ও নির্বাচনের পথসভায় হাত না ধুয়ে গোস্ত বিহীন খিচুড়িও খাচ্ছে কর্মীরা । বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে মানুষের ভীড় চোখে পড়ার মত, দুলছে দোলনা, দুলছে মাস্কবিহীন শিশু। মসজিদে জুমাবারে হাজার হাজার মানুষ নামাজ আদায় করছে তাও আবার সামাজিক দূরত্ব না মেনেই আবার আয়োজন করা হচ্ছে দুর্গাপূজার। পোশাক কারখানায় লক্ষ লক্ষ শ্রমিক এক সাথে কাজ করছে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে। গণপরিবহণে আগের মতই গাদাগাদি করে চড়ছে, ট্রেন থামলেই জনসমুদ্রে গাদাগাদি হয়ে বিয়ে, অফিস আদালত চষে বেড়াচ্ছে সাধারণ জনগণ।। করোনা শুধু নির্দিষ্ট করে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদেরই হবে মনে হচ্ছে! ২০ ব্যাচ এর শিক্ষার্থীরা হয়ত আমাকে গালি দিচ্ছেন! দেখা পাইলে পেটানোর কথা ভাবছেন! কিন্তু আজকে যারা ডান্স মেরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা আজ নয় কালকে এই সিদ্ধান্তের ভুক্তভোগী হবে না তো? এই মহামারীর কারনে ব্যাচটাকে সারাজীবনের জন্য পঙ্গু করে দেওয়া হচ্ছে না তো ?? সিলেবাস ও মার্কস কমিয়ে সীমিত আকারে হলেও পরীক্ষা নেওয়া যায় না কি ?? ১০০% পাশের পাবলিক পরীক্ষা পৃথিবীর কোথাও হয় নাই। আজ না হোক কাল সরকারি চাকরিতে ১০০% পাশের মত ১০০% সমস্যা বিহীন চাকরির নিশ্চয়তা পেলেও সবার ভাগ্যে সরকারি চাকরি নাও জুটতে পারে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সিভি জমা দিয়ে ভাইবায় ব্যবস্থাপনা পরিচালক এর মুখ থেকে শুনতে হবে না তো “আপনি তো টুয়েন্টি টুয়েন্টি পাস, আমাকে ক্ষমা করবেন, চাকরি হবে না ” সিদ্ধান্তটি নেয়ার বিরুদ্ধে আমি নই! কোনো সরকারি কিংবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান যেনো এই ব্যাচ এর সিভি হাতে নিয়ে এমন কথা না বলে সেই বিষয়টি যে সরকারেই থাকুক তারা যেনো মনে রাখে এই মহামারীর কথা, এই বিশেষ সিদ্ধান্তের কথা! আজ থেকে বছর খানেক পর যদি বিরোধীদল ক্ষমতায় আসে তখন যেনো এই সিদ্ধান্ত নিয়ে রাজনীতি করে ২০ ব্যাচ এর সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিপদগ্রস্ত না করে কিংবা বর্তমান সরকারও যেনো এইবিষয়ে একটি বিশেষ ঘোষণা দেয় যে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ হবে না।

আপনার মতামত লিখুন :