হত্যা মামলায় ৩ ভাইয়ের ফাঁসির আদেশ

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:৪২ PM, ০৮ অক্টোবর ২০২০

সোহাগ খন্দকার জেলা প্রতিনিধি গাইবান্ধা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে জমিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে চাচাত ভাই-বোনকে হত্যার দায়ে তিন ভাইয়ের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। ২০১৬ সালে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গাইবান্ধা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক দীলিপ কুমার ভৌমিক এ রায় দেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলার পূর্ব ঝিনিয়া গ্রামের আবুল হোসেনের তিন ছেলে হযরত আলী (৫৫), হাফিজুল ইসলাম (৩২) ও আজিজুল হোসেন (২৭)।

গাইবান্ধা কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক তোফাজ্জল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।মামলার এজাহারে সূত্রে জানা যায়, তসলিম উদ্দিন, মর্জিনা বেগম, জমিলা বেগম, আলমগীর হোসেন, মর্জিনা বেগম ও শহিদুল ইসলাম ২০১৬ সালের ১২ নভেম্বর সকালে নিজেদের জমিতে ধান কাটতে যাচ্ছিলেন। ওই দিন আসামিরা পরিকল্পিতভাবে বিদ্যুতের ছেঁড়া তার ফেলে রাখে রাস্তায়। সেখানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মামলার বাদী মফিজলের ছেলে তসলিম, ভাতিজি মর্জিনা, ছেলের বউ জমিলা বেগম ও ভাতিজা আলমগীর হোসেনসহছয়জন আহত হলে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তসলিমে উদ্দিন ও মর্জিনা বেগম মারা যান। এ ঘটনায় মফিজল হক বাদি হয়ে গত ১২ নভেম্বর রাতেই সুন্দরগঞ্জ থানায় সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

জেলা জজ আদালতে পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম শফিক জানান মামলার অধিকতর তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে সাত আসামির বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করেন। এরপর আদালতে দীর্ঘ চার বছর স্বাক্ষী-প্রমাণে এ মামলার শুনানী হয়। সর্বশেষ শুনানী শেষে মামলার তিন আসামিকে ফাঁসির দন্ড আদেশ দেন বিচারক। একই সঙ্গে মামলার অপর তিন আসামি নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের খালাস দিয়েছেন বিচারক। সাত আসামীর মধ্যে আবুল হোসেনে কিছু দিন আগে পলাতক অবস্থায় মারা গেছেন ।

খালাস পাওয়া আসামিরা হলেন, মৃত্যু আবুল হোসেনের স্ত্রী জরিনা বেগম, হযরত আলীর স্ত্রী গোলেনুর বেগম ও হাফিজারের স্ত্রী মোর্শেদা আকতার।

আপনার মতামত লিখুন :