ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করায় বাদীর ৫ বছর কারাদণ্ড

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৮ AM, ০৭ অক্টোবর ২০২০

গোলাম কিবরিয়া (জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধি) ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করায় বাদীর ৫ বছর কারাদণ্ড

জয়পুরহাটে ধর্ষণের মিথ্যা মামলা দায়ের করায় মোছা. মুন্নুজান বিবি (৪৮) নামে এক নারীকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলীর আদালত এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মুন্নুজান বিবি জয়পুরহাট সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের রবিউল ইসলামের স্ত্রী।

আদালত সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১লা ফেব্রুয়ারি বিষ্ণুপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার ছেলে মারুফ হোসেন মামলার বাদী মুন্নুজান বিবির অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মাদ্রাসা যাওয়ার পথে অপহরণ করে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। পরে গোলাম নবী নামে একজনের বাড়িতে নিয়ে মরিয়ম বিবি ও আব্দুর রাজ্জাক নামে দুইজনের সহায়তায় ভয়ভীতি দেখিয়ে বিয়ের আশ্বাসে ওই দিন থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত ধর্ষণ করে।

এরপর ৫ লাখ টাকা দাবি করে মারুফ হোসেন ২১ মার্চ বাড়ি থেকে ওই মেয়েকে বের করে দেয়। সেসময় মারুফ বলেছিল টাকা নিয়ে এলে তাকে স্ত্রীর মর্যাদা দেওয়া হবে। পরে মুন্নুজান বিবি বাদী হয়ে গত ১৭ আগস্ট জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

এদিকে মঙ্গলবার বাদী মুন্নুজান বিবি আদালতে উপস্থিত হয়ে মামলা চালাতে অপারগতা প্রকাশ এবং আসামিদের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অভিযোগ নেই বলে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য একটি আবেদন করেন।

এতে আসামিপক্ষের আইনজীবী ও বিচারকের কাছে মামলাটি মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক রুস্তম আলী তাকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এর আগে চলতি বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর একটি ধর্ষণ মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় বাদীকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছিলেন একই বিচারক।

জয়পুরহাটের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল বলেন, এসব রায় মিথ্যা মামলা থেকে বিরত রাখতে ভূমিকা রাখবে।

আপনার মতামত লিখুন :