জনগণের ট্যাক্সের টাকা যারা এইভাবে নষ্ট করেছে তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না,সুজন

আবদুল্লাহ আল হাদীআবদুল্লাহ আল হাদী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:১৯ PM, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

মোঃ মহসিন,চট্টগ্রাম সদর উপজেলা প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ময়লা অপসারণ করতে হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হয়।অথচ তার সঠিক কোন হিসেব নেই।কতজন কর্মী কাজ করছে তারও কোন সঠিক তালিকা নেই। চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন দৈনিক দেশের খবরকে বলেন, ‘পরিচ্ছন্ন বিভাগের ডোর টু ডোর প্রকল্পে বেশকিছু অনিয়মের তথ্য তদন্ত প্রতিবেদনে এসেছে। শ্রমিকদের কোনো ডাটাবেজ নেই। তাহলে হাজার-হাজার শ্রমিককে কিভাবে মনিটরিং করা হচ্ছে? তালিকা ছাড়া সঠিক ব্যক্তি কর্মস্থলে হাজিরা দিচ্ছেন কি না, সেটাও তো বোঝা সম্ভব নয়। অথচ প্রতিমাসে দুই কোটি টাকার ওপর মজুরি আসছে।’

চসিক প্রশাসক সুজন আরো বলেন,
‘তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর আমরা এই খাতে স্বচ্ছতা-জবাবদিহিতা আনার চেষ্টা করছি। পরিচ্ছন্ন বিভাগকে বলা হয়েছে, নিয়োগ দেওয়া দুই হাজার ৬৫ জন শ্রমিকের প্রত্যেকের নাম-ঠিকানা, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, মোবাইল নম্বর এবং ছবিসহ তালিকা করতে। সেই তালিকা সচিবালয়, পরিচ্ছন্ন বিভাগ ও হিসাব বিভাগে জমা থাকবে।

তালিকা দেখে প্রতিদিন ওয়ার্ডে-ওয়ার্ডে মনিটরিং করা হবে। তখন ভুতুড়ে নিয়োগ হয়েছে কি না, সেটা বের হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :