গোবিন্দগঞ্জে তরুনীকে গণধর্ষণ: দুইজনের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি, অপর দুই জন রিমান্ডে

আবদুল্লাহ আল হাদীআবদুল্লাহ আল হাদী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৪২ PM, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

সোহাগ খন্দকার,গাইবান্ধা প্রতিনিধি :  গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জে এক তরুনীকে গণধর্ষণের মামলায় আটক চার আসামীর মধ্যে দুই আসামির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। অপর দুই আসামী স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেওয়ায় তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণকরা হযেছে।

রোববার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিনগত গভীররাত পর্যন্ত শুনানী শেষে গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট (চৌকি) আদালতের বিচারক পার্থ ভদ্র এ আদেশ দেন।

ওসি মেহেদী হাসান জানান, আসামী জাহাঙ্গীর (৩৫) ও শাহাদত (২০) স্বেচ্ছায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হওয়ায় তাদের জবান বন্দি

বেকর্ড করা হয়। অপর ওই দুই যুবক জাহিদ (২৭) ও জহুরুলকে (২৬) ২ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেন বিচারক।

জাহাঙ্গীর পৌরসভার বোয়ালিয়া (নয়াপাড়া) গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে এবং শাহাদৎপৌর এলাকার চাষকপাড়া গ্রামের আনারুল হকের ছেলে ।

এছাড়া জাহিদ শহরের থানাপাড়া (কসাইপাড়া) গ্রামের মৃত ইউনুস আলীর ছেলে এবং জহুরুল ফুলবাড়ী নাচাই কোচাই গ্রামের আব্দুর রহমান সরকারের ছেলে।

পুলিশ জানায়, শাহাদতের সঙ্গে হোসেনের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ফরিদপুর জেলার চক হরিরামপুর গ্রামের ওই তরুণীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীর্ঘদিন ধরে এ সম্পর্ক চলাকালে বিয়ের কথা বলে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ওই তরুণীকে নিজ এলাকায় ডেকে আনে শাহাদত। পরে ওই তরুণীকে শহরের শিববাড়ী এলাকার একটি বাড়িতে তুলে তাকে আটকে রেখে শাহাদত ও তার বন্ধুরা মিলে গণধর্ষণ করে।

সেখানে দু’দিন ধরে নির্যাতনের শিকার হয়ে তরুণী ওই বাড়ি থেকে কৌশলে বের হয়ে গত শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পালিয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় গিয়ে অভিযোগ করে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশের একাধিক টিম পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ৪ জনকে আটক করে। তাদের বিরুদ্ধে নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় একটি মামলা হয়েছে।

 

আপনার মতামত লিখুন :