প্রেমিক মুসলমান জেনে প্রেমিকার আত্মহত্যা!

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:৫৬ PM, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

খবরের ডেস্কঃ

প্রেমিকাকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা থেকে রিপন ইসলাম নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ। পরবর্তীতে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। খবর সময় নিউজ অনলাইন।

খানসামা থানা পুলিশ জানিয়েছে ২৬ বছর বয়সী রিপন নিজের পরিচয় গোপন রেখে বিপ্লব রায় ছদ্মনাম ধারণ করে পার্শ্ববর্তী গ্রামের লতা রায়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। রিপন খানসামা উপজেলার ভাবকি ইউনিয়নের আগ্রা গ্রামের শাহপাড়ার হায়দার আলীর ছেলে। আর লতা রায়ের বাড়ি খামারপাড়া ইউনিয়নের জোয়ার গ্রামে। প্রেমের সম্পর্ক থেকে দুজন জড়িয়ে পড়েন শারীরিক সম্পর্কে। একসময় লতা রায় তার প্রেমিক কে বিয়ের প্রস্তাব দিলেন প্রেমিক রিপন তালবাহানা করতে থাকে। গত ১৪ আগস্ট লতা রায় বিয়ের উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন।

প্রেমিকের বাড়ি আসার পর এলাকার লোকজনের কাছে বিপ্লব রায়ের আসল পরিচয় রিপন ইসলাম জানতে পেরে লজ্জায় বাড়ি ফিরে আসেন। এবং ঐদিন মধ্যরাতে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় খানসামা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ময়না তদন্ত শেষ করে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে। পরে পরিবারের সদস্যরা পুলিশের কাছে প্রকৃতগত ঘটনা তদন্ত করার অনুরোধ করলে পুলিশ তদন্ত কাজ শুরু করে।

দিনাজপুরের খানসামা থানা পুলিশ জানায় লাশ উদ্ধারের পর থেকে জব্দকৃত আলামত, মোবাইল ফোনের বার্তা ও কথকপতনের সূত্র ধরে অনুসন্ধান চালায় পুলিশ। এরই প্রেক্ষিতে ৭ সেপ্টেম্বর রিপন ইসলামকে আটক করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রিপন ইসলাম ছদ্মনাম ব্যবহার করে সম্পর্ক গড়ে তোলা এবং শারীরিক সম্পর্ক করার কথা স্বীকার করেন।
এ বিষয়ে খানসামা থানার ওসি শেখ কামাল হোসেন জানান, এ ঘটনার পরও রিপন একাধিক নারীর সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। আটকের পর রিপনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

আপনার মতামত লিখুন :