বশেমুরবিপ্রবিতে অস্থায়ী কর্মচারীদের জীবন সংকটে

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:১৪ PM, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

নিজস্ব প্রতিনিধি
গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(বশেমুরবিপ্রবি) দুই দফা দাবি নিয়ে অন্যান্য দিনের মতো কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে অস্থায়ী কর্মচারীরা।
মঙ্গলবার(৮সেপ্টেম্বর) ১৩ মাসের বেতন বকেয়া এবং স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে কর্মসূচি পালন করে তারা।
এদিকে ১৩মাস যাবৎ বেতন বন্ধ থাকাই সংকটে অস্থায়ী কর্মচারীদের জীবন। দৈনিক মজুরি ভিত্তিক কর্মচারী শারমিন খানম সংকটের জীবন উল্লেখ করে বলেন”দেশে চলমান করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে স্বামীর আয় বন্ধ, শ্বশুর শাশুড়ি বৃদ্ধ হওয়ায় তাদেরও আয় করার সামর্থ্য নেই। এদিকে ১৩ মাস হলো আমিও বেতন পাচ্ছি না। বর্তমানে আমাদের অবস্থা এতটাই খারাপ যে, সন্তানের জন্য খাবারটুকুও কিনতে পারছি না”
শারমিন খানমের মত অনেকটা একই অবস্থা উল্লেখ করে দৈনিক মজুরি ভিত্তিক আরেক কর্মচারী নিবা রানী হালদার বলেন, “আমার স্বামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্মচারী ছিলেন, কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়। এরপর আমাকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে দৈনিক মজুরি ভিত্তিক কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন আমাদের একাধিকবার স্থায়ী নিয়োগের আশ্বাস দিয়েছিলেন কিন্তু সেটি তিনি বাস্তবায়ন করেননি। আর এই নিয়োগসংক্রান্ত জটিলতার ফলেই বিগত ১৩ মাস যাবৎ আমাদের বেতন ভাতা বন্ধ রয়েছে।”
এসময় তিনি আরও বলেন, “আমার পরিবারে আমিই একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। আমার দুই বছরের একটি সন্তান রয়েছে, শ্বশুর অসুস্থ। বর্তমানে অর্থের অভাবে খুবই দূরাবস্থায় দিন কাটাচ্ছি।”
এ বিষয়ে বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর ড. এ.কিউ.এম মাহবুব জানিয়েছেন, তিনি এখন পর্যন্ত কোনো স্মারকলিপি পাননি। তবে কর্মচারীদের সমস্যার বিষয়টি সম্পর্কে অবগত রয়েছেন।
উল্লেখ্য, দৈনিক মজুরিভিত্তিক অস্থায়ী কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বন্ধ থাকায় ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে আন্দোলনসহ আমরণ অনশনের কর্মসূচি পালন করে আসছে।
Seen by Abdullah Al Mamun at Wednesday 4:47pm
Aa

আপনার মতামত লিখুন :