গাজীপুরের শ্রীপুরে শিক্ষক কে নির্মমভাবে হত্যা

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৪৬ PM, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

মনিরুল ইসলামম মেরাজ। গাজীপুর প্রতিনিধিঃ
গাজীপুরে শ্রীপুর উপজেলায় মাদকের প্রতিবাদ করায় এক স্কুল শিক্ষককে বাজার থেকে ডেকে নিয়ে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত রাসেল (২৪), স্থানীয় সিংদিঘি গ্রামের সুজন আলীর ছেলে এবং শিশু কানন নামের একটি বেসরকারী বিদ্যালয়ের শিক্ষক। রোববার সকালে স্থানীয় বিলাইঘাটা এলাকার লবলঙ্গ খালের তীর হতে রাসেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাসেলের বাবা সুজন আলী জানান, কয়েকদিন আগে স্থানীয় কয়েক মাদক ব্যবসায়ীদের এ পেশা ছেড়ে ভালোর পথে আসতে বলেন রাসেল। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন ইমরানসহ কয়েক মাদক ব্যবসায়ী। শনিবার দুপুরে রাসেল বাড়ী থেকে বের হয়েছিল বাজারে যাওয়ার জন্য। তার বন্ধু তাকে মোটরসাইকেলে করে বাজার পর্যন্ত পৌছে দিয়েছিল।
পরে সন্ধ্যায় খবর পান তার ছেলেকে ইমরান নামের এক যুবক বাজার থেকে ধরে নিয়ে মারধর করছে। ছেলেকে ধরে নিয়ে মারধর করার খবর পেয়ে রাসেলের বাবা ইমরানের বাড়ি গিয়েও ছেলেকে পাননি। পরে ইমরানকে মুঠোফোনে রাসেলকে ছেড়ে দিতে বারবার অনুরোধ করলেও সে বলেছে রাসেলকে ছেড়ে দিয়েছে, রাতেই সে বাড়ী ফিরে যাওয়ার কথা। কিন্তু রাসেল আর বাড়ি ফিরেনি। তিনি আরো জানান, ২ সপ্তাহ আগে স্থানীয় মাওনা পুলিশ ফাঁড়ির কনষ্টেবল মফিজুল ইসলাম ইমরানকে ধরে নিয়ে যান। পরে ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। পুলিশ ইমরানকে ধরে নেয়ার পেছনে রাসেলের হাত রয়েছে সন্দেহে রাসেলকে হত্যার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে বাবার ধারণা।
এ বিষয়ে মাওনা ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান জানান, প্রায় দু’সপ্তাহ আগে স্থানীয় সলিং মোড় থেকে ইমরানকে ফাঁড়িতে ডেকে নেয়া হয়। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদকের কোন অভিযোগ না থাকায় জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ওইদিনই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছিল। মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য শহিদুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি এলাকায় মাদক বৃদ্ধি পেয়েছে। ইমরান মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। মাদকের প্রতিবাদ করতে গিয়ে এভাবে একজন যুবককে ডেকে নিয়ে মারধর করে মেরে ফেলবে তা হতে পারে না।
এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার ইমাম হোসেন জানান, নিহতের শরীরে আঘাতের একাধিক চিহ্ন রয়েছে। ব্যাপক মারধর করে শ্বাসরোধ করে এ যুবককে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে, একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি। দ্রুততম সময়ের মধ্যে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :